Skip to main content
Roton Kumar Roy
Asked a question 5 months ago

ভাইরাল শব্দটি প্রথম কোথায় ব্যবহৃত হয়? বাংলাদেশে বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম ভাইরাল ভিডিও কোনটি?

কোথায় আপনি?

এই MSB Ask কমিউনিটিতে আপনি যেকোনো প্রশ্ন করতে পারবেন, উত্তর দিতে পারবেন এবং নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারবেন। তাই নতুন হলে সাইনআপ করুন, আর আগেই থেকেই অ্যাকাউন্ট থাকলে লগিন করুন।  

Wasimul Haque Anis
নতুন তথ্যর সন্ধানে,

এই আলোচনায় আসার আগে আরও কিছু বিষয় জেনে নেওয়া যাক। যেমন– ভাইরাল শব্দের শাব্দিক অর্থ কী? খোলাসা করে বলতে গেলে এটির শাব্দিক অর্থ নেই বললেই চলে। এটি কেবল ভাবার্থেই ব্যবহৃত হয়।

এই শব্দটির উৎপত্তি হলো ‘ভাইরাস’ শব্দ থেকে। আর ভাইরাস শব্দটি মূলত ইংরেজি বর্ণমালার V, I, R, U এবং S-এর সমন্বিত রূপ, যেগুলো আলাদাভাবে পূর্ণাঙ্গ একেকটি শব্দ। অর্থাৎ ভাইরাস শব্দটি একটি সংক্ষিপ্ত রূপ, যার পূর্ণরূপ হলো, ‘Vital Information Resources Under Seize’ (ভাইটাল ইনফরমেশন রিসোর্সেস আন্ডার সিজ)।

অর্থাৎ ভাইরাস (Virus) শব্দটিকে Noun (বিশেষ্য) ধরে এটির Adjective বা গুণবাচক শব্দ (বিশেষণ) হিসেবে ব্যবহার করা হয় ভাইরাল (Viral) শব্দটি।

আর ভাইরাস শব্দটি যেহেতু দূষণ, জীবাণু বা বিষাক্ত– এ ধরনের অর্থে ব্যবহার করা হয় এবং ভাইরাস যেহেতু খুব দ্রুতই ভয়ংকরভাবে ছড়িয়ে পড়ে বা বিস্তার লাভ করে, তাই হঠাৎ সমাজে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া কোনো বিষয় বা ইস্যুকেই ‘ভাইরাল’ বলে উল্লেখ করা হয়।

২০১৭ সালে গুগল, ইউটিউব, ফেইসবুকে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত বা খোঁজ করা শব্দগুলোর মধ্যে ভাইরাল শব্দটি অন্যতম। গুগল ট্রান্সলেটরে যার আভিধানিক অর্থ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘ভাইরাসঘটিত’ এবং ব্যবহারিক অর্থ হিসেবে– বিষপূর্ণ, বিষাক্ত, দূষিত, দুষ্টু বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

তবে এই ‘ভাইরাল’ শব্দটি ভাইরাল হওয়ার আগেও কিন্তু এর ব্যবহার ছিল, যেমন– ভাইরাল ফিভার/জ্বর বা এই ধরনের শব্দে। আর রোগ-জীবাণু বা কম্পিউটারের ক্ষেত্রে ভাইরাস শব্দটির ব্যবহার তো ছিলই।

সামাজিকমাধ্যমে ‘ভাইরাল’ শব্দটি কীভাবে এলো?

অনলাইনে সর্বপ্রথম ভাইরাল শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন, একজন মার্কিন লেখক। তার নাম সেথ গোডিন। ‘আনলিশিং দ্য আইডিয়াভাইরাস’ শিরোনামে তিনি একটি প্রবন্ধ লিখেছিলেন। ২০০০ সালের ৩১ জুলাইয়ের ঘটনা। ফাস্ট কোম্পানি ডটকমে প্রকাশিত হয় লেখাটি। সেখানে একটি লাইন ছিল এ রকম, Have the Idea behind your online experience go viral… (হ্যাভ দ্য আইডিয়া বিহাইন্ড ইয়োর অনলাইন এক্সপেরিয়েন্স গো ভাইরাল...)।

সেই থেকে শুরু। ভাইরাল হয়, ‘ভাইরাল’ শব্দটি। এখন তো সেলিব্রিটির বিয়ের ছবি থেকে শুরু করে হিলারি ক্লিনটনের গোপন ফোনালাপ এমনকি গাঁও-গ্রামের প্রেমকাহিনীও ভাইরাল হয়।

আজকাল তো ভাইরাল শব্দটিই একটি ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকে যেমন শুধু পপুলার বা বিখ্যাত হওয়ার জন্য নিজেই ভাইরাল হওয়ার চেষ্টায় থাকেন। আর এর অংশ হিসেবে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ছবি, ভিডিও কিংবা কোনো বক্তব্য– এগুলো নির্মিত হোক বা গোপনে ধারণ করা স্ক্যান্ডাল ভিডিও হোক। কেউ ভাইরাল হচ্ছেন নিজেই, কেউ হচ্ছেন অন্যের ফাঁদে পড়ে। ভাইরাল শব্দটির এখন হাজার রূপ। এর যেমন খারাপ দিক রয়েছে, রয়েছে ভালো দিকও।

ভাইরালিজমের এই যুগে কেউ রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে যাচ্ছেন, কেউ কেউ সেলিব্রিটি থেকে খলনায়কে পরিণত ভক্তদের কাছে। কারণ কেউ একটা খারাপ জিনিস করলেই সেটা সঙ্গে সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল করে দিচ্ছে বা ভাইরাল হয়ে যাচ্ছে কোনো না কোনোভাবে। আবার কেউ কেউ অন্যের ওপর ক্ষিপ্ত হয়েও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এসে তার সম্পর্কে গোপন তথ্য ভাইরাল করে দিচ্ছে। এমনকি আত্মহত্যার মতো বিষয়টির ভিডিও আজকাল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়।

Mohammad Alif
Digital Marketer | Philosophy Enthusiast

এই আরটিকেল টি পড়ুন https://www.msbask.com/post/5e5214366a72a561f2b03fb8212

Mahmudul Hasan Ashik
Student | Blogger | Tech Lover

MSBAsk এ একজনের আর্টিকেল আছে। https://www.msbask.com/post/5e5214366a72a561f2b03fb816