Skip to main content
Asked a question 7 months ago

চূল পড়া বন্ধ করতে ঘরোয়া সমাধান কি?

কোথায় আপনি?

এই MSB Ask কমিউনিটিতে আপনি যেকোনো প্রশ্ন করতে পারবেন, উত্তর দিতে পারবেন এবং নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারবেন। তাই নতুন হলে সাইনআপ করুন, আর আগেই থেকেই অ্যাকাউন্ট থাকলে লগিন করুন।  

জলপাই এর তেল(Olive) মাখতে পারেন। ভাই এই লিঙ্কে যেতে পারেন। একেবারে বিস্তারিত আলোচনা করা আছে। অনেক খুজে বের করলাম।

https://www.stylecraze.com/bengali/chul-pora-bondho-korar-ghoroa-upay-in-bengali/11

পেয়াজ এর রস দিতে পারেন। খুসকি ও ধুর হবে পেয়াজের রস এ। 

অনেক সময় সন্তান জন্ম দেওয়ার পরে মহিলাদের চুল পড়ার সমস্যা দেখা যায়। এক্ষেত্রে শরীরে হরমোনের পরিবর্তনের কারণে এরূপ সমস্যা লক্ষ্য করা যায়। এই সমস্যা অত্যধিক বৃদ্ধি পেলে প্রয়োজনে ডাক্তারের সাহায্য নিতে হয়।

 জেনে নেই চুল পড়া বন্ধের ঘরোয়া উপায়

১. চুলের গোড়ায় গরম তেল ম্যাসেজ :
 

চূল পড়া বন্ধ করতে ঘরোয়া সমাধান কি?

গরম তেল চুলের জন্য খুবই উপকারী। এ ক্ষেত্রে নারকেল ও বাদামের তেলের জুড়ি নেই। তেল গরম করার পরে ধীরে ধীরে আপনার আঙ্গুলের দ্বারা মাথার খুলিতে ম্যাসেজ করুন। এই ম্যাসেজ চুলের গোড়ায় রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি করে, শিকড়ে শক্তি বাড়ায় ও চুল পড়া রোধ করে।

২.পেঁয়াজ রস

চূল পড়া বন্ধ করতে ঘরোয়া সমাধান কি?

পেঁয়াজে উচ্চ মাত্রায় সালফার থাকে।পেঁয়াজের রস মাথায় নতুন চুল গজাতেও চুল পড়া বন্ধে সাহায্য করে। মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় এবং এর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়া উপাদান জীবাণুমুক্ত রাখতে সাহায্য করে।

পেঁয়াজের রস বের করে বাটিতে নিন। রসে তুলার ভিজিয়ে হাতের সাহায্যে মাথার ত্বকে লাগান। ৩০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। পেঁয়াজের রস একটানা সাতদিন ব্যবহারের পড়েই আপনি এর কার্যকারিতা দেখতে পাবেন।

৩. বিটরুট রস

চূল পড়া বন্ধ করতে ঘরোয়া সমাধান কি?

বীটরুটে পটাসিয়াম, ভিটামিন ‘বি’, ভিটামিন ‘সি’ ফসফরাস এবং প্রোটিন রয়েছে। বীটরুটে চুল পড়া বন্ধ, নতুন চুল গজানো ও চুল বৃদ্ধিতে সাহায্যে করে। এছাড়া মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়। বীটরুটের রস করুন ও পাতা পানিতে সিদ্ধ করে ঘন করে নিন। এই উপাদান দুটির সঙ্গে সামান্য মেহেদি মিশিয়ে ঘন পেস্ট করে নিতে পারেন। মাথার তালুতে লাগানোর ৩০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪. সবুজ চা

চূল পড়া বন্ধ করতে ঘরোয়া সমাধান কি?

সবুজ চায়ে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা চুল পড়া রোধ ও বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এক কাপ গরম পানিতে দুই ব্যাগ চা মিশিয়ে নিন। হালকা গরম থাকা অবস্থায় মাথায় লাগান। এক ঘণ্টা পর চুল ধুয়ে ফেলুন।

৫. আমলকি  

চুল পড়ে যাওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে ভিটামিন সি’র অভাব। আমলকিতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি রয়েছে। আমলকি চুলপড়া বন্ধ, চুলের খুশকি দূর করে। আমলকির রস নারকেলের তেলের সঙ্গে মিশিয়ে চুলের গোড়ার লাগালে উপকার পাওয়া যায়।  

৬. নিমপাতা

নিমপাতাকে বলা হয় সকল রোগের মহৌষধ। তেমনি এই চুলপড়া বন্ধ ও নতুন চুল গজাতে নিমপাতার জুড়ি নেই। নিম পাতা গরম পানিতে দিয়ে পেস্ট করে চুলে লাগানোর ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। দুই সপ্তাহের মধ্যেই দেখবেন আপনার চুল পড়া অনেক অংশে কমে গেছে।    

৭. ডিমের সাদা অংশ পেস্ট করে লাগান

ডিমের সাদা অংশে থাকা প্রোটিন এবং ভিটামিন চুলের পুষ্টি জোগায়।পাতলা চুলের সমস্যা দূর করে চুল ঘন ও মশ্রিন করে।দুটি ডিমের সাদা অংশ দিয়ে মাস্ক তৈরি করে মাথার ত্বকে ও চুলে লাগান।৩০ মিনিট অপেক্ষা পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

৮. ধ্যান করুন

ধ্যান করলে চুল পড়া কমে অনেকের কাছে বিষয়টি হাস্যকর মনে হতে পারে। কিস্তু এটি সত্যি। অতিরিক্ত চাপ ও দুশ্চিন্তা চুল পড়ার মূল কারণ হয়ে উঠতে পারে। নিয়মিত ধ্যান আপনাকে চাপমুক্ত রাখে ও  হরমোনের ভারসাম্য তৈরি করে।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

চুলের সাধারণ সমস্যায় ব্যবহার করতে পারেন আলুর রসের হেয়ার প্যাক। এতে চুল কমবে, চুল দ্রুত বাড়বে, পাশাপাশি ঝলমলে ও মজবুত হবে। আর চুল পড়া বন্ধ করতেও আলুর রস ভালো কাজ করে।

আসুন জেনে নিই যেভাবে ব্যবহার করবেন আলুর রস-

 

১. আলুর রস চুলের গোড়ায় লাগিয়ে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করে অপেক্ষা করুন। আধা ঘণ্টা পর কুসুম গরম পানি ও শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

২. অর্ধেকটি আলু রস করে ২ টেবিল চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করুন। ৩০ মিনিট পর মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন।

৩. একটি আলু ও একটি পেঁয়াজ রস করে একসঙ্গে মেশান। মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রাখুন। ২০ মিনিট পর ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪. ৩টি আলু রস করে একটি ডিমের কুসুম ও ১ চা চামচ মধু দিয়ে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি চুলের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত লাগিয়ে রাখুন। ৪০ মিনিট পর ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন।

তথ্যসূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।