Skip to main content
Question
Ahammod Abdullah Rushan
Student ; Knowledge seeker ; Article writer ; Blogger.
Asked a question 4 months ago

কিভাবে ব্লগিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারি? অর্থাৎ, লিখালিখি করতে চাই। কেউ বিস্তারিত পরামর্শ দিবেন কী?

কোথায় আপনি?

এই MSB Ask কমিউনিটিতে আপনি যেকোনো প্রশ্ন করতে পারবেন, উত্তর দিতে পারবেন এবং নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারবেন। তাই নতুন হলে সাইনআপ করুন, আর আগেই থেকেই অ্যাকাউন্ট থাকলে লগিন করুন।  

আমার জানা মতে, আপনি নিজস্ব কোনো ব্লগিং সাইট খুলে তাতে এড দেখিয়ে আয় করতে পারেন।

কিন্তু এতে কিছু আলাদা খরচ আছে আপনার যেমন- ডোমেন কিনা ইত্যাদি।

অন্যদিকে আপনি অন্য কারো ওয়েবসাইটেও ব্লগ লিখে আয় করতে পারেন। এতে অবশ্যই আপনাকে কোনো বিষয়ে প্রচুর পারদর্শী হতে হবে।

এই জন্য বিস্তারিত জানতে এই আর্টিকেলটি পড়ুন- https://banglatech.info/%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%B2%E0%A6%97%E0%A6%BF%E0%A6%82-blogging-%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A7%87-%E0%A6%B6%E0%A7%81%E0%A6%B0-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A6%AC%E0%A7%87%E0%A6%A8/4

প্রথম দিকে আপনারকে সবার আগে ভালও একটি ওয়েবসাইট বানাতে হবে। ডিজাইন ভাল হতে হবে ও তার সাথে ফাস্ট হতে হবে। তার সাথে ভালও নাম। তার পর আপনি লেখা শুরু করুন। যখন ২০-৫০ ব্লগ শুরু হয়ে যাবে তখন মার্কেটিং করুন। ফেসবুক+ SEO ও আর ও অনেক জাইগাই মার্কেটিং শুরু করে দিন। মানুষকে বুজান যে কেন তারা ওয়েবসাইট আসবে। এভাবে এগিয়ে যেতে থাকুন। তার সাথে আপনি গুগল অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন। সেটা থেকে আপনার ইনকাম হবে। এছাড়াও ওয়েবসাইট এর ট্রাফিক বাড়লে আপনি স্পন্সর ও নিতে পারেন। এক বার যদি আপানার ওয়েবসাইট দারিয়ে যাই তাহলে পরে বেশি কষ্ট করতে হবে না। প্রথম ৩-৬ মাস কঠিন হবে। 

আর প্রথম দিকে খরচ হিসাব দিলাম এখানে। 

Domain- ডোমেইন এর দাম নিভর করে কোন ডোমেইন তার উপর যেমন ডট কম বেশি ৮০০ থেকে ১০০০ টাকাই দেশে পেয়ে যাবেন। ( প্রতি বছর)  

hosting- ২৫০-৪৫০ Hosting নুতুনদের জন্য বেস্ট হবে। কিছু লিমিট থাকবে। তবে শুরুতেই বেশি খরচ করে লাভ হবে না। ( প্রতি মাস) 

theme- ফ্রী থিম কাজ চালিয়ে নিন। পরে থিম কিনুন। 

wordpress- একদম ফ্রী। 

CDN- ফ্রী ও আছে আবার পেড ও আছে। তবে শুরুতে Cloud flare ও জেটপ্যাঁক দিয়ে ফ্রীতে কাজ করলেই হবে। তাদের ফ্রী সার্ভিস এ অনেক ভালও। 

এগুলো ও লাগবে আপানার। প্রতকে টা ফলো করলেই সব কাজ হবে আশা করি।   

মূলত ব্লগ (Blog) একটি ইংরেজী শব্দ। যার আভিধানিক অর্থ হলো ভার্চুয়াল ডায়েরী অথবা ইন্টারনেটে ব্যক্তিগত দিনলিপি। পক্ষান্তরে এই ইংরেজি ”Blog” শব্দটি আবার ”Weblog” এর সংক্ষিপ্ত রূপ। ১৯৯৭ সালে জোম বার্গার নামে একজন মার্কিন নাগরিক সর্বপ্রথম ”Weblog” শব্দটি উদ্ভাবন করেন। পরবর্তীতে, ১৯৯৯ এর এপ্রিল বা মার্চের দিকে ‘পিটার মেরহোলজ’ তার নিজস্ব ব্লগ পিটার্ম ডট কমে কৌতুক করে ‘weblog’ শব্দটিকে ভাগ করে ‘blog’ বলে সম্বোধন করেন। তারপর থেকে ‘blog’ শব্দটির ব্যাবহার প্রসার ঘটতে থাকে।

ব্লগিং কেন করবেন

ধরুন, আপনি একটি টপিক এর উপর কোন কিছু লিখে গুগলে সার্চ দিলেন তাহলে ঐ বিষয়ের উপর অনেকগুলো ব্লগ বা ওয়েবসাইটের লিস্ট পাবেন। যেগুলো সাইটে গিয়ে আপনি অনেক কিছু জানতে পারবেন এবং উপকৃত হবেন। অনুরূপভাবে, আপনি যখন কোন বিষয়ে ভাল জানেন আবার সেগুলো যদি নিজের ব্লগ অথবা অন্য কোন ব্লগ সাইটে পোস্ট দেন তাহলে অন্যরা ঐ টপিকে সার্চ করার সময় সেগুলো পাবে এবং তারাও জানতে পারবে। এতে করে তারাও উপকৃত হতে পারবে।

এছাড়াও নিম্নলিখিত কারণে আপনি ব্লগিং শুরু করতে পারেন…

  • ব্লগিং এর মাধ্যেমে সাম্প্রতিক, এবং ঘটে যাওয়া বিভিন্ন বিষয়ে নিজের চিন্তা-চেতনা ও মতামত প্রকাশ করতে পারবেন।
  • ব্লগিং এর মাধ্যমে নিত্য নতুন অনেক কিছু শিখা যায় এবং অন্যকে শিখাতে সাহায্য করা যায়।
  • ব্লগিং এর মাধ্যমে অ্যাডসেন্স, অ্যাফিলিয়েশন ও স্পনসরশিপ থেকে আয় করা যায়।
  • ব্লগিং এর মাধ্যমে একজন ভালো লেখক হওয়া যায়।
  • ব্লগিং এর মাধ্যমে নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলার পাশাপাশি অন্যকে অনুপ্রাণিত করা যায়।

এবার আসি কিভাবে ব্লগিং শুরু করবেন? চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

যেভাবে ব্লগিং শুরু করবেন :

জানা-অজানা বিভিন্ন বিষয়গুলো, অথবা সাম্প্রতিক কোন বিষয়সমূহ নতুন করে সহজ ও বোধগম্য ভাবে জানানো, কিংবা নিজের অভিব্যক্তি ও চিন্তাভাবনা প্রকাশ করার একটি মাধ্যম হলো ব্লগিং। ইন্টারনেটের সহজলভ্যতা, বিভিন্ন স্পনসরসিপ, অ্যাফিলিয়েশন ও অ্যাডভারটাইসমেন্ট থেকে ইনকাম সোর্স সৃষ্টি হওয়ার ফলে সারা বিশ্বে তথা বাংলাদেশেও ব্লগিং এর চাহিদা ক্রমশই বেড়েই চলেছে।

আপনি যদি ব্লগিং শুরু করতে চান তাহলে প্রাথমিকভাবে অবশ্যই আপনার নিচের জিনিসগুলো প্রয়োজন হবে।

  • একটি ডিজিটাল ডিভাইস যেমন:- স্মার্ট ফোন, ট্যাব, ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার।
  • একটি ইন্টারনেট কানেকশন।
  • একটি ইমেইল অ্যাকাউন্ট।
  • বাংলায় লেখার জন্য বিজয় অথবা অভ্র সফ্টওয়্যার ।
  • ব্লগিং সাইট গুলোতে লেখার জন্য একটি অ্যাকাউন্ট।

এই সকল কাজ করে আপনি ব্লগিং করতে পারবেন।  

একটি সাধারনমানের ওয়েবসাইট খোলার জন্য অনেক বেশি টেকনিক্যাল ঞ্জানের দরকার হয় না। আপনি সহজেই একটি ওয়েবসাইট খুলে সেটি আপনার ব্যক্তিগত কাজ বা ব্যবসায়িক কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়া বর্তমানে আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করে টুকটাক লেখালেখি করে গুগল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে বা যে কোন তৃতীয় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিঞ্জাপন দিয়ে অর্থ উর্পাজন করতে পারেন।

তবে আমি বলবো প্রথমে আপনি অর্থ উর্পাজনের উদ্দেশ্য নিয়ে ওয়েবসাইট খুলবেন না। এতে করে আপনি বেশিদূর এগিয়েই যেতে পারবেন না।

প্রথমত আপনার উদ্দেশ্য থাকতে হবে ভালো কিছু কনটেন্ট পাবলিশ করা যেগুলো মানুষের উপকারে আসে। তারপর ধীরে ধীরে আপনার ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা বাড়লে আপনি আপনি এমনি অর্থ উর্পাজন করতে পারবেন।

প্রথমে এমন হবে কেউ আপনার ওয়েবসাইট নাও দেখতে পারে। কোন ধরনের ট্রাফিক আসবে না। তখন হতাশ হবেন না। আপনার কনটেন্টের মান ভাল করুন। একটু পাবলিসিটি করুন ট্রাফিক এমনি আসবে।