Skip to main content
Wasimul Haque Anis
নতুন তথ্যর সন্ধানে,
Asked a question 10 months ago

স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক চিপসেট-এর মধ্যে পার্থক্য কী?

কোথায় আপনি?

এই MSB Ask কমিউনিটিতে আপনি যেকোনো প্রশ্ন করতে পারবেন, উত্তর দিতে পারবেন এবং নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারবেন। তাই নতুন হলে সাইনআপ করুন, আর আগেই থেকেই অ্যাকাউন্ট থাকলে লগিন করুন।  

Mahmudul Hasan Ashik
Student | Blogger | Tech Lover

বর্তমান স্মার্ট ফোন জগতে আমরা সবাই স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক (অন্যান্য ও আছে কিন্তু আলোচনা এ দুটো নিয়ে) চিপসেট নিয়ে বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য আছে, কিন্তু অনেক মানুষই জানে না, আসলে কোনটি কেমন, কোনটি ভালো বা খারাপ।


স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক চিপসেট-এর মধ্যে পার্থক্য কী?

স্মার্টফোনে সাধারণত সর্বাধিকভাবে দুই ধরনের চিপসেট ব্যবহার করা হয়। (আরও আছে, কিন্তু বহুল ব্যবহৃত এ দুটো) স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক।

স্নাপড্রাগণঃ (Snapdragon/SD)


স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক চিপসেট-এর মধ্যে পার্থক্য কী?

বর্তমানে আমেরিকার কোয়ালকম(Qualcomm) কোম্পানি কর্তৃক উৎপাদিত প্রসেসর এই স্ন্যাপড্রাগন। যার জন্যে একে বলা হয় কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন। এর উৎপাদন শুরু হয় আমেরিকার সান ডিয়েগো শহরে। স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর কয়েকটি কোরে বিন্যস্ত হয়। Dual core(২ টি কোর),Quad core(৪ টি কোর),Hexa core(৬ টি কোর),Octa core(৮ টি কোর). স্ন্যাপড্রাগনের সবচেয়ে পাওয়ারফুল লেটেস্ট প্রসেসর এখন পর্যন্ত SD 855+. স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট SOC এ একটি সিপিইউ, জিপিইউ (অ্যাড্রিনো গ্রাফিক্স), ইমেজ প্রসেসর, মিডিয়া প্রসেসর, ডিএসপি (ডিজিটাল সংকেত প্রসেসর), সেলুলার মডেম ইউনিট, ওয়াইফাই মডিউল, রেডিও মডিউল, জিপিএস মডিউল ইত্যাদি থাকে। এই সকল মডিউল এবং প্রসেসর এর কারনে তাদের চিপ ব্যয়বহুল হয়।

ব্যাটারি লাইফঃ

স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট অন্যান্য সব চিপসেট এর তুলনায় দক্ষতা পরিপ্রেক্ষিতে সবচেয়ে ভাল ব্যাটারি লাইফ দেয়। অর্থাৎ, এটি পারফরম্যান্স ও যেমন ভালো দেয়, চার্জ ও সে তুলনায় বেশ কম খরচ করে।

কর্মক্ষমতাঃ

স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট সবচেয়ে ভাল পারফরমেন্স প্রদান করে। মাল্টি টাস্কিং, গেমিং, ভারী এবং নিবিড় কর্ম পরিচালনার ক্ষেত্রে এটি বেশ কার্যকারী। কম র্্যামে উরাধুরা পারফরম্যান্স দিতে সক্ষম।

Overheating সমস্যাঃ

স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর সাধারণত (স্ন্যাপড্রাগন 810 চিপসেট ব্যতীত) মিডিয়াটেক তুলনায় অনেক কম তাপ উৎপন্ন করে। আর তাছাড়া ও কিছু ডিভাইসে কিছু বেশী তাপ উৎপন্ন হয়, সেটা মূলত সে ফোনের সফটওয়্যার ও রমের কারনে হয়।

গ্রাফিক্সঃ

গ্রাফিক্স এ তারা তাদের নিজস্ব গ্রাফিক্স Adreno গ্রাফিক্স ব্যবহার করে। এখানে CPU ও GPU দুটো সবচেয়ে ভাল দক্ষতা প্রদান করে। এছাড়া স্ন্যাপড্রাগন SOC নিয়ে অনেক গবেষণা করে।

মিডিয়াটেকঃ (Mediatek/MTK)


স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক চিপসেট-এর মধ্যে পার্থক্য কী?

এটি তাইওয়ানিজ চিপসেট। এরা দুই, চার কোর,আট কোর, দশ কোর এর মত প্রসেসর তৈরি করে। অর্থাৎ, ডেকা কোর পর্যন্তও তৈরি করে।

ব্যাটারি লাইফঃ

মিডিয়াটেক চিপসেট পারফরমেন্স অনুযায়ী অনেক বেশি ব্যাটারি ব্যবহার করে। বেশি কোর ব্যবহার এর কারনে ব্যাটারি লাইফ এর দিক থেকে এটি অনেক পিছিয়ে। সেই সাথে ফোন ব্যবহার না করলেও কোরে সংখ্যা বেশী হওয়ার কারনে কিছুটা চার্জ নিতেই থাকে, যেটাকে বলা হয় Battery Draining।

কর্মক্ষমতাঃ

পারফরমেন্স এ তাদের প্রসেসর বেশ ভাল। অতিরিক্ত কোরের কারণে মিডিয়াটেক প্রসেসর নিবিড় এবং ভারী কাজগুলো করতে সক্ষম এবং তারা মাল্টি এ খুব ভাল। পর্যাপ্ত র‍্যাম থাকলে এর কোর গুলো সর্বোচ্চ দক্ষতা প্রদান করতে পারে। না হলে এটি মাঝে মাঝেই ঘুমিয়ে পরতে পারে!

Overheating সমস্যাঃ

এর সবচেয়ে বড় সমস্যা হল এটি অনেক গরম হয়। অধিক কোর এর কারণে অধিক তাপ উৎপাদিত হয়। যেটা অনেক সময় ব্যাটারিতে এফেক্ট ফেলতে পারে।

গ্রাফিক্সঃ

মিডিয়াটেক মালি গ্রাফিক্স ব্যবহার করে। যা তৃতীয় পক্ষের গ্রাফিক্স, যার ফলে CPU ও GPU আলাদা হয় ও এর পারফরমেন্স সব মিলিয়ে খুব একটা ভালো টাইমিং দিতে পারে না। যার ফলে এর গ্রাফিক্স পারফরমেন্স ও তেমন ভাল না।

সোর্সঃ সাইদুর রাহমান। 

স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর সাধারণত (স্ন্যাপড্রাগন 810 চিপসেট ব্যতীত) মিডিয়াটেক তুলনায় অনেক কম তাপ উৎপন্ন করে। আর তাছাড়া ও কিছু ডিভাইসে কিছু বেশী তাপ উৎপন্ন হয়, সেটা মূলত সে ফোনের সফটওয়্যার ও রমের কারনে হয়।

মিডিয়াটেক চিপসেট পারফরমেন্স অনুযায়ী অনেক বেশি ব্যাটারি ব্যবহার করে। বেশি কোর ব্যবহার এর কারনে ব্যাটারি লাইফ এর দিক থেকে এটি অনেক পিছিয়ে। সেই সাথে ফোন ব্যবহার না করলেও কোরে সংখ্যা বেশী হওয়ার কারনে কিছুটা চার্জ নিতেই থাকে, যেটাকে বলা হয় Battery Draining।

সাধারণত মোবাইল এ স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক এর প্রসেসর ব্যবহৃত হয়।

আসলে স্ন্যাপড্রাগন ও মিডিয়াটেক যেটা তৈরি ওটা হল SOC (System On Chip)

SOC এর মধ্যে CPU, GPU, MODEM etc  থাকে। 

এখন, SOC সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে ব্যাখ্যা করা হলঃ

1)স্ন্যাপড্রাগন 

স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট  Qualcomm (আমেরিকান) কোম্পানি দ্বারা উত্পাদিত হয়।

 স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট  SOC এ একটি সিপিইউ, জিপিইউ (অ্যাড্রিনো গ্রাফিক্স), ইমেজ প্রসেসর, মিডিয়া প্রসেসর, ডিএসপি (ডিজিটাল সংকেত প্রসেসর), সেলুলার মডেম ইউনিট, ওয়াইফাই মডিউল, রেডিও মডিউল, জিপিএস মডিউল ইত্যাদি থাকে। এই সকল মডিউল এবং প্রসেসর এর কারনে  তাদের চিপ ব্যয়বহুল হয়।

  

 ব্যাটারি লাইফ: 

 স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট অন্যান্য সব  চিপসেট এর তুলনায় দক্ষতা পরিপ্রেক্ষিতে সবচেয়ে ভাল ব্যাটারি লাইফ দেয়।

 

কর্মক্ষমতা:

 স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট সবচেয়ে ভাল পারফরমেন্স প্রদান করে। মাল্টি টাস্কিং, গেমিং, ভারী এবং নিবিড় কর্ম পরিচালনার ক্ষেত্রে এটি বেশ কার্যকারী।

 

তাপীকরণ সমস্যা:

 স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর সাধারণত (স্ন্যাপড্রাগন 810 চিপসেট ব্যতীত ) মিডিয়াটেক তুলনায় অনেক কম তাপ উৎপন্ন করে।

 

গ্রাফিক্স:

 গ্রাফিক্স এ তারা তাদের নিজস্ব গ্রাফিক্স অ্যাড্রিনো গ্রাফিক্স ব্যাবহার করে। এখানে CPU ও GPU দুটো সবচেয়ে ভাল দক্ষতা প্রদান করে।

এছাড়া স্ন্যাপড্রাগন SOC নিয়ে অনেক গবেষণা করে।

2)মিডিয়াটেক

 

এটা একটি তাইওয়ানীয় কোম্পানী। এরা চার কোর,আট কোর, দশ কোর এর মত প্রসেসর তৈরি করে। 

  

 ব্যাটারি লাইফ:

 মিডিয়াটেক চিপসেট  পারফরমেন্স আনুযায়ী অনেক বেশি ব্যাটারি ব্যবহার করে। বেশি কোর ব্যবহার এর কারনে ব্যাটারি লাইফ এর দিক থেকে এটি অনেক পিছিয়ে।

 কর্মক্ষমতা:

 পারফরমেন্স এ তাদের প্রসেসর খুব ভাল। অতিরিক্ত কোরের কারণে মিডিয়াটেক প্রসেসর নিবিড় এবং ভারী কাজগুলো করতে সক্ষম এবং তারা মাল্টি এ খুব ভাল। পর্যাপ্ত র‍্যাম থাকলে এর কোর গুল সর্বোচ্চ দক্ষতা প্রদান করতে পারে।

 তাপীকরণ সমস্যাঃ

 এর সবচেয়ে বড় সমস্যা হল এটি অনেক গরম হয়। অধিক কোর এর কারণে অধিক তাপ উৎপাদিত হয়।

 

গ্রাফিক্সঃ

 মিডিয়াটেক মালি গ্রাফিক্স বাবহার করে। যা তৃতীয় পক্ষের গ্রাফিক্স,  যার ফলে CPU ও GPU আলাদা হয় ও এর পারফরমেন্স সব সময় মিলে না। যার ফলে এর গ্রাফিক্স পারফরমেন্স তেমন ভাল না।

এছাড়া মিডিয়াটেক কোন গবেষণা করে না, এরা শুধু সব অংশ কিনে SOC তৈরি করে বিক্রি করে।

 

স্ন্যাপড্রাগন এ ফোন এর র‍্যাম যদি কম ও হয় তারপরও ভালো পার্ফরমেন্স দেয়। অপরদিকে র‍্যাম যদি বেশি হয় তাহলে মিডিয়াটেক এর পার্ফরমেন্স স্ন্যাপড্রাগন এর চেয়েও ভালো হতে পারে। স্ন্যাপড্রাগন এ ব্যাটারি ব্যাকআপ ভালো পাওয়া যায়। স্ন্যাপড্রাগন কম ব্যাটারি খরচ করে অপরদিকে মিডিয়াটেক এ চার্জ ইউজ হয় হিউজ পরিমানে। স্ন্যাপড্রাগন এ ফোন গরম কম হয়, কিন্তু মিডিয়াটেক চিপসেট ব্যবহার করা ফোন গুলো অনেক বেশি তাপ উৎপাদন করে। এই হলো মোটামুটি পার্থক্য। আমি সবসময় ই স্ন্যাপড্রাগন ই সাব্জেক্ট করব। তবে বাজেট কম হলে মিডিয়াটেক ও নিতে পারেন।কারন স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট এর স্মার্টফোন গুলোর প্রাইজ একটু বেশী হয়।

ভিডিওhttps://www.youtube.com/watch?v=w4omK5f4WU09